আব্দুল হালিম নিহন , সৌদি আরব প্রতিনিধি সৌদি আরব

দীর্ঘ সময় পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর একসেস টু ইনফরমেশনের (এটুআই) সরাসরি উদ্যোগে এবং জেদ্দা কন্স্যুলেটের সহযোগিতায় মদিনায় প্রবাসী সেবাকেন্দ্র এক্সপ্যাট্রিয়েটস ডিজিটাল সেন্টার (ইডিসি’র) উদ্বোধন করা হয়েছে।

একসেস টু ইনফরমেশন হলো- বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীনে গণযোগাযোগ অধিদফতর কর্তৃক পরিচালিত একটি প্রকল্প। যা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীনে ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে বাংলাদেশ সরকারের সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে।

প্রবাসী বাংলাদেশিদের সেবার মান বৃদ্ধি ও দ্রুত করার লক্ষ্যে একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রবাসী সেবাকেন্দ্র এক্সপ্যাট্রিয়েটস ডিজিটাল সেন্টার (ইডিসি) নামে সম্পূর্ণ নতুন ধরনের প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে মদিনা আল মুনাওয়ারায় এই আয়োজন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের যুগ্ম সচিব এটুআই উদ্ভাবনের পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান, জেদ্দা বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল মো. এফ এম বোরহান উদ্দিন, বাংলাদেশ সরকারের উপ-সচিব উদ্ভাবন বিশেষজ্ঞ শাহিদা সুলতানা, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক তারিকুল ইসলাম, লেবার কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম, কাউন্সিলর আলতাফ হোসেন, কনসাল পাসপোর্ট কামরুজ্জামান, কনসাল কাজী সালাউদ্দিন, ভাইস কনসাল মোস্তফা জামিল ও সোনালী ব্যাংক প্রতিনিধি সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম প্রমুখ।

মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, সরকারি সেবা প্রদানের প্রচলিত দৃশ্যপট বদলে সমাজের সব শ্রেণির মানুষের দোরগোড়ায় সহজে, দ্রুত, স্বচ্ছ ও হয়রানিমুক্ত সেবা পৌঁছে দেয়াই ডিজিটাল বাংলাদেশের মূল উদ্দেশ্য। যা প্রধানমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা। এ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সরকার প্রবাসী বাংলাদেশিদের কাছে এই সেবা পৌঁছাতে দূতাবাস ও কন্স্যুলেটের পাশাপাশি সম্পূর্ণ নতুন ফর্মেটে প্রথমবারের মতো মদিনায় পরীক্ষামূলক প্রবাসী সেবাকেন্দ্র চালু করেছেন।

তিনি বলেন, এতে আপনাদের সময় এবং ভোগান্তি কমবে। ফলে জনজীবন আরও সহজ হবে। দেশের উন্নতি ত্বরান্বিত হ্ওয়ার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে পরিচালিত একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্প পরিচালিত হচ্ছে দেশব্যাপী। এরই ধারাবাহিকতায় বিদেশেও যাত্রা শুরু হলো। সৌদি আরবসহ পৃথিবীব্যাপী এই সেবা কার্যক্রম বিস্তৃত করায় দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

এই সময় জেদ্দা কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল মো. এফ এম বোরহান উদ্দিন বলেন, আপনাদের যাতায়াত দুর্ভোগ সময় বাঁচানো ও আপনাদের দোরগোড়ায় কন্সুলেট সেবা হাসি মুখে পৌঁছে দেয়া আমাদের এই সেবাকেন্দ্রের মুল লক্ষ্য, আমি মদিনা কমিউনিটি ও মদিনা প্রবাসী ভাইদের সহযোগিতা কামনা করি, আশাকরি আপনারা এই সেবা কেন্দ্রকে সার্বিক সহযোগিতা করবেন।

মদিনা প্রবাসী কেন্দ্র (ইডিসি) পরিচালিত হবে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, জেদ্দা এবং একসেস টু ইনফরমেশনের (এটুআই) সার্বিক সহযোগিতায়। সার্বিক উদ্যোক্তা তত্ত্বাবধানে থাকবেন সারজাতুল আলম দিপু, আরিফ ভুইঞা এবং মোহাম্মদ শাহজাহান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইয়ুথ জার্নালিস্ট ফোরামের মধ্যপ্রাচ্য প্রতিনিধি কাজি নওফেল, মদিনা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি মুসা জলিল, জেদ্দা কমিউনিটি লিডার আলতাফসহ মদিনার বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক এবং ব্যাবসায়ী নেতারা।